[gtranslate]

RJ Kibria কে নিয়ে মুখ খুললো তার কাছের বন্ধু|সত্যিই স্ত্রী দ্বারা নি’র্যাতিত কিবরিয়া? 


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ১৫, ২০২৩, ১২:৪২ অপরাহ্ণ / ৩০
RJ Kibria কে নিয়ে মুখ খুললো তার কাছের বন্ধু|সত্যিই স্ত্রী দ্বারা নি’র্যাতিত কিবরিয়া? 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া সরকার যিনি মানুষের কাছে Rj কিবরিয়া নামে পরিচিত।যার কাজ মানুষের জীবনের গল্প বলা। আর আজ তার জীবনের গল্পই বর্তমান সময়ে সোস্যাল মিডিয়ার মেন টপিক। RJ Kibria তার স্ত্রী দ্বারা নির্যাতিত। এই কথা টা কতটুকু সত্য নাকি সসম্পুর্নটাই কিবরিয়া ভাইয়ের বানানো গল্প। কারণ স্ত্রী কি স্বামী কে নির্যাতন করতে পারে? এমন প্রশ্ন অনেকের মনেই ঘুরপাক খাচ্ছে।তাই এখন এখানে এমন কিছু তুলে ধরবো যেটা অনেকের অজানা।তিনি কেমন মানুষ, তিনি পারিবারিক জীবনে কেমন ছিলেন সব কিছু নিয়েই এই প্রতিবেদন।

একটা মানুষ সম্পর্ক সব থেকে ভালো বলতে পারে তার কাছের লোকজন, তার বন্ধু বান্ধব বিশেষ করে তার বাল্যবন্ধু। তো আজ এখানে এমন একজনের কথা তুলে ধরবো যিনি আরজে কিবরিয়ার ঘনিষ্ঠ বন্ধু। যিনি অকপটে আরজে কিবরিয়া সম্পর্কে সব সত্যি কথা গুলো বলেছেন।বলছি তাজমিনুল হক জিতুর কথা।যিনি RJ Kibria এর কাছের ও ঘনিষ্ঠ বন্ধু। তিনি যা বলেছেন হুবহু তুলে ধরছি

Tazminul hoque xitu,

ব্যাপক জনপ্রিয় “কথা বন্ধু” খ্যাত আর জে কিবরিয়া কৈশর কাল থেকে আমার বন্ধু। কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি আমাদের একটাই ছিল। ছোট বেলায় সে তার বাবাকে হারিয়েছে। তার বাবাকে একজন মুক্তিযোদ্ধা বললে ভুল হবে না। তার বাবা সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে দেশের জন্য দায়িত্ব পালনকালে শহীদ হয়েছেন বলে আমরা জানি। সেই থেকে কিবরিয়ার দুনিয়া তার মা কে ঘিরে আবদ্ধ ছিল। ক্যান্ট পাবলিক কলেজে আমাদের ক্লাশে তুখর ছাত্রদের একজন ছিল সে। অর্থনীতিতে সে সব সময় হায়েস্ট মার্কস পেতো। তখন অর্থমন্ত্রী ছিলেন শাহ এস এম কিবরিয়া। তাই আমরাও ওকে বলতাম বড় হয়ে সে অর্থমন্ত্রী হবে। সেটা না হলেও হয়েছে কথাবন্ধু। সরকারি চাকরির কোন চেষ্টাই সে করেনি। রেডিও তে বক বক করতে করতে বিসিএস পরীক্ষার বয়স শেষ! তবুও সে কথা বলেই যাচ্ছে মানুষ কে বিনোদন দেয়ার জন্য। আমার বন্ধু মন্ত্রীর চেয়ে কম কিসে, তাকে এক নামে সারা দেশের মানুষ চিনে, পশ্চিমবঙ্গেও চিনে।।

সে একজন স্পষ্টভাষী, সৎ এবং ডিসিপ্লিনড একটা ছেলে। ক্যাম্পাস জীবন থেকেই সে মোটামুটি পরিচিতি পাওয়া, কখনো তার সম্পর্কে প্রেম, নষ্টামি, মেয়ে রিলেটেড কোন কটু কথা কানে আসে নি।

কদিন ধরে মিডিয়াতে তার পারিবারিক বিবাদ নিয়ে মূলধারার মিডিয়াসহ সোশ্যাল মিডিয়াতে নিউজ দেখছি। কোথাও কোথাও নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। সেসব নিউজে অনেকের নেতিবাচক মন্তব্যও দেখা যাচ্ছে যারা এই কথাবন্ধু সম্পর্কে খুবই কম জানেন। বিনোদন দেওয়া মানুষদের ঘরে যে অশান্তি সৃষ্টি হতে পারে না এমন ধারণা ভুল। ছোট বড় বিবাদ নেই এমন কোন পরিবার কি আছে!! নিউজে দেখলাম তার স্ত্রী কিবরিয়া ও তার সন্তানদের মারধর করেছে, আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছে। তাই সে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে রেখেছে। কিবরিয়ার অনেক ভক্ত আমাকেও ইনবক্সে জানতে চেয়েছে আসলে ঘটনা কি। আমিও একটু ঘোরের মধ্যে ছিলাম। ফেসবুকে একটা কমেন্টে কিবরিয়া লিখেছে “নিজের মাকেও ঘরে ঢুকাতে পারি না” মানে স্ত্রীর কারনে সে তার মাকে তার বাসায় আনতে পারতো না। এটা দেখার পর আর কিছু বলার থাকে না। কিবরিয়ার মা ছাড়া দুনিয়ায় আর কিছুই ছিল না আর নাইও। ছেলেটি অসম্ভব ধৈর্য্যশীল বলেই এতো দিন সংসার করতে পেরেছে। তা না হলে মিডিয়ার জনপ্রিয় লোকেরা এতো দিন এক সঙ্গীতে আটকে থাকে না। কিবরিয়ার জন্য অনেক ধনীর দুলালীরা ব্লেড দিয়ে হাত কেটেছে!!

কিবরিয়ার জন্য সব সময় শুভ কামনা।।

এমন কথাই নিজের ফেসবুক আইডি থেকে শেয়ার করলেন তার বন্ধু Tazminul hoque xitu.