[gtranslate]

সুনামগঞ্জে শ্রমিক লীগের র‌্যালী ও শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে সেলিম আহমদের পাশে হাজারো নেতা কর্মীদের ঢল


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৩, ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ / ২১
সুনামগঞ্জে শ্রমিক লীগের র‌্যালী ও শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে সেলিম আহমদের পাশে হাজারো নেতা কর্মীদের ঢল

স্টাফ রিপোর্টার::

২১ ফেব্রæয়ারী বাংঙ্গালী জাতির মহান আন্তর্জাতিক মাতৃ ভাষা দিবস পালিত হচ্ছে । যথাযথ মর্যাদায় সারাদেশে পালিত হয় এই দিবসটি । তারই ধারাবাহিকতায় সারা দেশের ন্যায় সুনামগঞ্জ পালিত হয়েছে শহীদদওে প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে এই দিবস। ২১ ফেব্রæয়ারী রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে শুরু হয় শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি পুষ্পমাল্য দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন। প্রথমে জেলা প্রশাসন থেকে শুরু করে বিভিন্ন রাজনৈতিক ,সামাজিক, সরকারি ,বেসরকারী সংগঠন একের পর এক শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের মাধ্যমে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে সুনামগঞ্জ জেলা ও শহর ছিল উত্তাল। মিছিলে মিছিলে রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে কন্ড কন্ড বিভিন্ন সংগঠন মাতৃভাষায় শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবদেন করেন। সকাল ১০ ঘটিকায় জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি ও সুনামগঞ্জ ১ আসনের নৌকার মনোনয়ণ প্রত্যাশী মো: সেলিম আহমদের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে হাজার হাজার নেতাকর্মীদের নিয়ে বিশাল একটি গণ মানুষের র‌্যালী সুনামগঞ্জ পৌর শহরের শ্রমিক লীগের জেলা কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষীণ করে স্থানীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি পুষ্পমাল্য শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করেন যা ছিল শহর বাসীর নজর কারানো দৃশ্য। যথাযোগ্য মর্যাদায় শহীদদের প্রতি পুষ্পমাল্য শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন শেষে র‌্যালীটি শ্রমিক লীগের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালী শেষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় । এসময় শ্রমিক লীগের সভাপতি সেলিম আহমদ স্বাগত বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন বাংলা মাতৃভাষার জন্য বাংঙ্গালী জাতি রক্ত দিয়েছেন, অনেক ভাইয়েরা নিজেদের জীবন দিয়ে শহীদ হয়েছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আজ আমরা একটি স্বাধীন বাংলাদেশে বাস করছি । ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনে আমাদের অনেক ভাইয়েরা জীবন দিয়েছেন যাদের ত্যাগের মহিমায় আমরা আজ মাতৃ ভাষা বাংলা ভাষায় কথা বলছি তাদের আতœার মাগফেরাত কামনা করি। তিনি বলেন ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযোদ্ধের মাধ্যমে ২ লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে এবং ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীন বাংলাদেশ। পাকিস্তানী হয়েনাদের হাত থেকে এদেশকে মুক্ত করতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এদেশটি স্বাধীন হয়েছিল। কিন্ত আজও এদেশে পাকিস্তানী হায়েনাদের পেতাততারা, রাজাকার, আলবদরদের দূসররা আমাদের দেশকে ধংশ করতে বার বার ষড়যন্ত করে যাচ্ছে । কিন্তু এক মাত্র বঙ্গবন্ধুর তনয়া জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে কারনে আজ বিশে^র বুকে বাংলাদেশ একটি রোল মডেলে পরিণত হয়েছে । তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহব্বান জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি মহসীন আহমদ, আবু হানিফ, যুগ্ম সম্পাদক গোলাম হাফিজ, রাসেল চৌধুরী, নাজমুল ইসলাম ইমন, সাংগঠনিক সম্পাদক দিদারুল বাশার অপু,জাহাঙ্গীর আলম, প্রচার সম্পাদক পল্লব ভট্রাচার্য্য , সহ- প্রচার সম্পাদক আমির হোসেন, দপ্তর সম্পাদক শাহিন মিয়া, শ্রমিক লীগ নেতা আবুল মিয়া, সাবেক ছাত্র লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমদ সুজন, সাবেক যুবলীগ সদস্য কে এম শহীদুল ইসলাম, সদর উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মিঠুন চন্দ, পৌর শ্রমিক লীগের সভাপতি আবু সালেহ,সাধারণ সম্পাদক তৈয়বুর রহমান, সহ সভাপতি মো: সাজেদ মিয়া, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সামছুল ইসলাম, তাজমুল ইসলাম রকি, ফাহিম আহমদ, তুষার আহমদ প্রমূখ।