[gtranslate]

সদ্য বহিস্কৃত ভোলাহাট থানার ওসির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগকারী নারীর বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১৯, ২০২৩, ৮:৪২ পূর্বাহ্ণ / ২০
সদ্য বহিস্কৃত ভোলাহাট থানার ওসির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগকারী নারীর বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

ফয়সাল আজম অপু, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

সদ্য সাময়িক বহিস্কৃত হওয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগকারী নারীর বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে স্থানীয় ফতেপুর এলাকাবাসী। শুক্রবার (২৪ মার্চ) দুপুরে নাচোল উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের খলসী বাজারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আমরা খলসী এলাকার বাসিন্দারা স্থানীয় নারী সালমা খাতুনের অত্যাচারে অতিষ্ট। তার বিরুদ্ধে কেউ কিছু বললেই নারী নির্যাতন মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দেয়। গত কয়েকদিন আগে পুলিশের একটি দল আমাদের গ্রামে খোঁজ-খবর নিতে আসলে আমরা যা জানি তাই বলেছি। এরপর থেকেই আমাদেরকে মুঠোফোনে ও সরাসরি নানাভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে সালমা খাতুন। আমরা মামলার ভয়ে আতঙ্কে দিন পার করছি। দীর্ঘদিন ধরে ওই নারী একের পর এক লোককে মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসাচ্ছে। বক্তারা আরও বলেন, এর আগে খলসী গ্রামের বাসিন্দা ও সালমার প্রতিবেশী লোকমান মেম্বারের ছেলে খলিলুর রহমান পপেলের বিরুদ্ধে সালমার মা বাদি হয়ে আদালতে ধর্ষণ মামলা করে। যা পরে মিথ্যা মামলা বলে প্রমাণিত হয়। একই গ্রামের মেসবাউল হক বাবুর বিরুদ্ধেও একটি মামলা করেন সালমা খাতুন, যা পরবর্তীতে আদালতের মাধ্যমে আপোষ-মিমাংসা হয়। বিভাস নামের ঢাকার এক ব্যক্তি সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হওয়ার ভয়ে স্থানীয়ভাবে শালিসে সালমা খাতুনের ৫০ লাখ টাকার দাবির প্রেক্ষিতে ১০ লাখ টাকা জরিমানা দিয়ে আপোষ-মিমাংসা করেন। মানববন্ধনে স্থানীয় এলাকাবাসী আরও বলেন, ২০২১ সালে ভেটেরিনারি সার্জন আলমগীর হোসেনকেও ওসি সেলিম রেজার মতো করেই ফাঁসিয়ে বিয়ের দাবি জানায়। পরে বিয়েতে রাজি না হলে ওই ভেটেরিনারি সার্জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন সালমা খাতুন। পরে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে স্থানীয়ভাবে সমাধান হয়। একইভাবে ওসি সেলিম রেজাকেও ফাঁসানোর চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। অথচ ওসি সেলিম রেজা খুব ভালো মানুষ বলে দাবী করেন এলাকাবাসী। আমরা এমন কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। সেই সাথে সেই নারীর কঠোর শাস্তি দাবি করেন স্থায়ীয়রা। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন, সাবেক ইউপি সদস্য টুকু, স্থানীয় বাসিন্দা লসকোর আলী, সাংবাদিক হাবিবুল্লাহ সিপন, আশরাফুল ইসলাম সুজন, ওমর ফারুক, ব্যবসায়ী আল আমিনসহ অন্যান্যরা। এসময় ফতেপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন বয়সী জনসাধারণ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধন শেষে ব্যানার নিয়ে সালমার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করে এলাকাবাসী।