[gtranslate]

র‌্যাব-১২’র অভিযানে কুষ্টিয়ার ইউপি সদস্য হত্যা মামলার প্রধান আসামি সহ ০২ জন গ্রেফতার।


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : এপ্রিল ৪, ২০২৩, ৪:৩৬ অপরাহ্ণ / ২৪
র‌্যাব-১২’র অভিযানে কুষ্টিয়ার ইউপি সদস্য হত্যা মামলার প্রধান আসামি সহ ০২ জন গ্রেফতার।

জাহিদুল ইসলাম, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:- 

সিপিসি-১ (কুষ্টিয়া), র‌্যাব-১২’র অভিযানে কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলায় দৌলতখালি গ্রামে ইউপি সদস্য মোঃ কাজল হোসেন হত্যা মামলার প্রধান আসামি সহ ০২ জন গ্রেফতার।“বাংলাদেশ আমার অহংকার” এই স্লোগান ননিয়ে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিভিন্ন ধরণের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জোরালো ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাবের সৃষ্টিকাল থেকে বিপুল পরিমাণ অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ উদ্ধার, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, খুনি, ছিনতাইকারী, অপহরণ ও প্রতারকদের গ্রেফতার করে সাধারন জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। গত ১৫ মার্চ ২০২৩ তারিখ সন্ধ্যা ০৬:৩০ ঘটিকার সময় দৌলতপুর উপজেলার দৌলতখালি গ্রামে ইউপি সদস্য মোঃ কাজল হোসেন (৪৫) নামের ইউপি সদস্য প্রতিপক্ষের লোকজন পরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্র দ্বারা গুরুতর আঘাত করে। ঘটনা স্থানের স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৬ মার্চ ২০২৩ তারিখ ভোর ০৫:০০ ঘটিকায় তাঁর মৃত্যু হয়। আসামির দেওয়া তথ্য মতে, এক মাস আগে বিয়েবাড়িতে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে কাজলের ভাতিজার সঙ্গে প্রতিবেশী মাবুদ হোসেনের ছেলে ও তার চাচাতো ভাই এর সাথে কথা-কাটাকাটির হয়। এ ঘটনার কারনে গত ১৫ মার্চ ২০২৩ তারিখ আনুমানিক বিকাল ০৪:০০ ঘটিকার দিকে মাবুদ হোসেনের ছেলে ও তার চাচাতো ভাই কলেজ থেকে ফেরার পথে নিহত কাজলসহ আরোও লোকজন নিয়ে তাদেরকে মারার উদ্দেশ্যে রড দিয়ে আঘাত করে ও হাতাহাতি, মারামারি সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার কারনে ঐদিন সন্ধ্যা ০৬:২০ ঘটিকার সময় বিষয়টি নিয়ে নিহত কাজল ও তার ভাতিজাকে সাথে নিয়ে আসামি মাবুদ এর বাড়ির সামনে বিভিন্ন ধরনে গালিগালাজ ও মারধরের হুমকি দিতে আসে বলে আসামী জানায়। যার ফলে কাজল ও মাবুদের সাথে কথা-কাটাকাটির শুরু হয় এবং একপর্যায়ে তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে পিঠে ও ঘাড়ে গুরুতর জখম করা হয়। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয় কাজল ব্যাপারটি মিমাংশা করতে গিয়েছিল। উক্ত হত্যাকান্ডের প্রেক্ষিতে নিহতের (কাজল হোসেন) এর ভাতিজা মোঃ শামীম হোসেন বাদী হয়ে ১৫ মার্চ ২০২৩ ইং তারিখ দৌলতপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, যার মামলা নাম্বার-৩২, তারিখ-১৫/০৩/২০২৩, ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/ ৩০৭/৫০৬(২)/১১৪/৩০২ পেনাল কোড। পূর্ব শত্রতার জের ধরে প্রকাশ্যে সন্ধ্যা বেলায় সংঘটিত হত্যাকান্ডটি বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে।