[gtranslate]

রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নির্বাচনে প্রভাব খাটানোর অভিযোগ


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : মে ১২, ২০২৪, ৩:৩৬ অপরাহ্ণ /
রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নির্বাচনে প্রভাব খাটানোর অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার:

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে একজন প্রার্থীর হয়ে প্রভাব খাটাচ্ছেন এমন অভিযোগ উঠেছে রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং অফিসারের কাছে এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। রোববার রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও রিটার্নিং অফিসারের দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী শরিফুজ্জামান শরিফ। তিনি আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মজিদ ঘোড়া প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়ে ছিলেন। পরবর্তীতে চেয়ারম্যান পদ থেকে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করায় পূনরায় স্বপদে বহাল হয়ে উপজেলা পরিষদের সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করে প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মজিদের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। সাধারণ ভোটারদের অফিসে ডেকে ও গ্রামে গ্রামে গিয়ে সরকারি সুযোগ সুবিধা দেবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচনী পরিবেশে সমঅধিকার বিঘ্নিত করছেন।

চেয়ারম্যান প্রার্থী শরিফুজ্জামান শরিফ বলেন, গত কয়েকদিন থেকে দেখছি উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম একজন প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। সরকারি সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে নির্বাচনে প্রভাব খাটাচ্ছেন। এ কারনে বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখে অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ এবং অংশগ্রহণমুলক নির্বাচনের পরিবেশ নিশ্চিত করতে রিটার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছি। অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম বলেন, দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তিনি প্রার্থী হয়েছিলেন। পরবর্তীতে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এ কারনে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনে কোনো বাধা নেই। সরকারি সুযোগ সুবিধা ভোগ করে নির্বাচনে প্রভাব খাটানোর বিষয়ে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা উদ্দেশ্যে প্রণোদিত ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন তিনি। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও রিটার্নিং অফিসার কল্যাণ চৌধুরী বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ২১ মে অনুষ্ঠিত হবে দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২ জন। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে ৩ জন ও সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।