[gtranslate]

বরিশালে তিন উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের মধ্যে তিনটিতে আওয়ামী।


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৭, ২০২১, ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ / ৮৪
বরিশালে তিন উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের মধ্যে তিনটিতে আওয়ামী।

 

(জেলা প্রতিনিধি বরিশাল)

বরিশালে তিন উপজেলার পাঁচ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে তিনটিতে আওয়ামী লীগ, একটি আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও অপরটিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। হেরে যাওয়া দুই ইউপিতে নৌকার প্রার্থীদের অবস্থান ছিল তৃতীয় স্থানে। এর মধ্যে এক ইউপিতে ২১৮ ভোটে হেরেছেন নৌকার প্রার্থী।

বাবুগঞ্জ উপজেলার চাঁদপাশা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন রাঢ়ী পাঁচ হাজার ৭৫৬ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী আনিসুর রহমান সবুজ হাতুড়ি প্রতীকে পেয়েছেন তিন হাজার ৫৫৬ ভোট।

হিজলা উপজেলার ধুলখোলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী জসিম মাতব্বর দুই হাজার ৬৬৯ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের প্রার্থী জামাল ঢালী পেয়েছেন এক হাজার ৬৬৬ ভোট।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুর্গাপাশা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী হানিফ তালুকদার তিন হাজার ৭৪২ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম পেয়েছেন দুই হাজার ৬৬৮ ভোট। ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখার প্রার্থী রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৬৭১ ভোট।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার নেয়ামতি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখার প্রার্থী হুমায়ুন কবির তিন হাজার ২৩৬ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের প্রার্থী কামাল হোসেন তালুকদার পেয়েছেন তিন হাজার ১৪১ ভোট। আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী মতিউর রহমান বাদশা তিন হাজার ১৮ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছেন।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরামদ্দি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের সাহাবুদ্দিন খোকন চার হাজার ৭১৫ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখার প্রার্থী তোফায়েল আহমেদ পেয়েছেন চার হাজার ৫৬০ ভোট। আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী গাউসেল আযম লাল তিন হাজার ৩৪৯ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছেন।

রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে পাঁচ ইউনিয়নের ৪০টি কেন্দ্রের ২১৫ বুথে ভোট দেন ভোটাররা। রাতে ভোট গণনা শেষে ফল ঘোষণা করেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নুরুল আমিন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।