[gtranslate]

নরসিংদীর দুই উপজেলার ২২ টি ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত ব্যাপক সংঘর্ষ আহত ৫০/৬০ নিহত ৩


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : নভেম্বর ৩০, ২০২১, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ / ১১৩
নরসিংদীর দুই উপজেলার ২২ টি ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত ব্যাপক সংঘর্ষ আহত ৫০/৬০ নিহত ৩

 

জেলা প্রতিনিধি: মোঃ আরিফুর রহমান

তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ১ হাজার ৩ টি ইউপি নির্বাচনের মধ্যে নরসিংদী সদরে ১০টি ও রায়পুরা উপজেলার ১২ টি সহ মোট ২২ টি ইউনিয়নের নির্বাচনে নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের নাম বেসরকারী ভাবে ঘোষণা করা হয়েছে । তন্মধ্যে নরসিংদী সদরে ৯ টি এবং রায়পুরা উপজেলায় ৫টি সব মিলিয়ে ১৪ টি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান এবং বাকি ৮ টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন ।

গত ২৮ নভেম্বর ২০২১ ইং রবিবার সকাল ৮ ঘটিকা হতে বিরতিহীন ভাবে বিকেল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ শেষে নরসিংদী সদর ও রায়পুরা উপজেলার নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানদের নাম বেসরকারি ভাবে ঘোষণা করা হয়েছে ।

নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান গন হলেন যথাক্রমেঃ- নরসিংদী সদর উপজেলার নজরপুরে – সাইদুল হক স্বপন ( নৌকা ) , হাজীপুর – ইউসুফ খাঁন পিন্টু ( নৌকা ) , করিমপুর – মমিনুর রহমান আপেল ( নৌকা ) , কাঁঠালিয়া – এবাদুল্লাহ ( নৌকা ) , আমদিয়া – আবদুল্লাহ ইবনে রহিছ মিঠু ( নৌকা ) , মেহেরপাড়া – আজাহার অমিত প্রান্ত ( নৌকা ) , শীলমান্দী – গিয়াস উদ্দিন মাস্টার ( নৌকা ) , পাঁচদোনা – মিজানুর রহমান ( নৌকা ) , বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন পাইকারচর – আবুল হাশেম ( নৌকা ) ও চিনিশপুর – মোঃ মেহেদী হাসান তুহিন ( মোটর সাইকেল ) স্বতন্ত্র প্রার্থী ।

রায়পুরা উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের বিজয়ী চেয়ারম্যান গন হলেন যথাক্রমেঃ- ডৌকাচর – মাসুদ ফরাজী ( টেলিফোন ) , চান্দেরকান্দী – মিজবাহ উদ্দীন খন্দকার মিতুল ( আনারস ) , মির্জাপুর – মন্জুর এলাহী ( চশমা ) , মুছাপুর – হোসেন ভূঁইয়া ( নৌকা ) , রাধানগর – খোরশেদ আলম তপন ( চশমা ) , অলিপুরা – মাসুদ ভূঁইয়া ( নৌকা ) , মহেশপুর – ফরহাদ হোসেন চাঁন ( চশমা ) , রায়পুরা – ফারুক হোসেন ( আনারস ) , উত্তর বাখর নগর – হাবিব উল্লাহ ( নৌকা ) , মরজাল – আতাউর রহমান ( আনারস ) , আদিয়াবাদ – হাজী সেলিম ( নৌকা ) ও পলাশতলী – জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া ( নৌকা ) প্রতীকে বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন ।

নরসিংদীর নজরপুর করিমপুর শীলমান্দী চিনিশপুর ও কাঁঠালিয়ায় ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে এতে প্রায় ৫০ জন আহত হয়েছে এবং বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ হয়েছে
পাশাপাশি রায়পুরা চান্দের কান্দী ও উত্তর বাখর নগর নির্বাচনী সহিংসতায় ৩ জন খুন হয়েছে এবং ৭ জন আহত হয়েছে বলেও জানা যায় । নির্বাচনকে ঘিরে ব্যাপক বোমাবাজি টেটা যুদ্ধ জ্বালাও-পোড়াও এর ঘটনাও ঘটেছে ব্যাপক ।

করিমপুরের নৌকার প্রার্থী মমিনুর রহমান আপেলকে হত্যার চেষ্টা করে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস মার্কার গোলাম কিবরিয়া এবং
আপেলের গাড়ীটি ব্যাপক ভাঙচুর করেছে । নজরপুরের সদস্য প্রার্থী জালাল সরকারকে অবরুদ্ধ করে রাখে নৌকার প্রার্থী সাইফুল হক স্বপন । প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান , স্বাধীনতা যুদ্ধের পর এত বড় সহিংসতা কোন নির্বাচনে হয়নি।