[gtranslate]

নকশা বন্দী মোজাদ্দেদীয়া তরিকা কি?প্রাথমিক ধারণা


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : মার্চ ১৯, ২০২৪, ৬:১৭ পূর্বাহ্ণ / ৩০
নকশা বন্দী মোজাদ্দেদীয়া তরিকা কি?প্রাথমিক ধারণা

নকশাবন্দি (আরবি: نقشبندية naqshbandī; also written an-Naqshbandiyyah, Nakşibendi, Naksibendi, Naksbandi) হল সুন্নি ইসলামের অন্তর্গত একটি সুফি তরিকা। সুফি তরিকাগুলোর মধ্যে শুধু এটিই নিজেদের ধারা পেছনের দিকে হযরত আবু বকরের মাধ্যমে মুহাম্মদের সাথে সম্পর্কিত করে।[১][২][৩][৪][৫] কিছু নকশাবন্দি ধারা অবশ্য নিজেদেরকে চতুর্থ খলিফা আলির মাধ্যমে মুহাম্মদের সাথে সম্পর্কিত করে।[৩][৪][৫]ইসলামি আকীদার যেমনিভাবে স্বীকৃত তিনটি ধারা আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামাতের মাঝে আছে, তেমনিভাবে ইসলামী জ্ঞান-বিজ্ঞানের ব্যাখ্যা ও সুবিন্যস্তকরণের ক্ষেত্রে ফিকহ ও মাযহাবের ক্ষেত্রেও ৪টি স্বীকৃত ধারা রয়েছে। যদিও একাধিক স্বীকৃত মাযহাব এক সময়ে ছিল, কিন্তু উক্ত ধারা গুলো যুগ পরম্পরায় যথাযথভাবে সংরক্ষিত ও সংকলিত না হওয়ায় তা টিকে থাকেনি।অনুরূপভাবে তাযকিয়াতুন নফস, ইহসান ও আত্মশুদ্ধির কাজে নিয়োজিত বহু নেককার সালেহীন অনেক অবদান রেখেছেন। তাদের মাঝে পরবর্তীতে সংরক্ষিত ও ব্যাপক প্রচলিত ৪ ধারা প্রসিদ্ধ হয়েছে। তাদের মাঝেই অন্যতম একটি ধারা হচ্ছে ‘নকশা বন্দিয়া তরীকা’।আত্মশুদ্ধির এই তরিকাগুলো অনেকটুকুই সুন্নাহ সম্মত। তাদের সূচনা হয়েছে সুন্নাহর অনুসরণ করে শিরক-বিদাত নাকোচ করে আত্মশুদ্ধি হাসিল করার প্রচেষ্টার মাধ্যমে। তবে একদল অসাধু, স্বার্থবাদী ও দ্বীন সম্পর্কে অজ্ঞ লোক এই ধারাগুলোতে অনেক ধরনের কুসংস্কার ও বিদাতের অনুপ্রবেশ ঘটিয়েছে। তাই বলে সকলেই নয়।এই তরিকাটির সূচনা মূলত হয়েছে শায়খ বাহাউদ্দীন নকশাবন্দীর মাধ্যমে।উপমহাদেশের নকশাবন্দিয়া তরীকাহর অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব হচ্ছেন ‘শাইখ আহমাদ সারহিন্দ যাকে দ্বীনের মাঝে নানাবিধ বিদাতের নির্মুল ও দ্বীন সংস্কারের কারণে মুজাদ্দিদে আলফে সানীও বলা হয়ে থাকে। মুজাদ্দিদে আলফে সানী নকশা বন্দিয়া তরিকাকে সংস্কার করেন। একে নকশা বন্দিয়া-মুজাদ্দিদিয়া তরিকা বলা হয়।