[gtranslate]

দিরাইয়ের রফিনগর ইউপি সদস্যসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক ২টি মামলা দায়ের


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১২, ২০২৩, ৯:১০ পূর্বাহ্ণ / ২৩
দিরাইয়ের রফিনগর ইউপি সদস্যসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক ২টি মামলা দায়ের

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: 

সুনামগঞ্জ দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নে গাজীয়ারগাওঁ গ্রামে পাওয়ার ট্রিলার মেশিন চুরির ঘটনায় আদালতে ইউ/পি সদস্য মাসুক মিয়াসহ ৩জনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এবং দুটি অভিযোগেই রফিনগর ইউনিয়নের ছাদিরপুর নতুন পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত আব্দুল মতলিবের পুত্র ইউ/পি সদস্য মাসুক মিয়া (৩৫)”কে প্রধান আসামী করে,একই গ্রামের ছিদ্দিক আলীর পুত্র কাওছার (৩০), ও আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে তোহা মিয়া (২৮)”কে সহযোগী আসামী করে পৃথক ভাবে দুটি মামলা দায়ের করা হয়।  গত ১০ এপ্রিল ২০২৩ইং তারিখে মেশিনের দুই মালিক আদালতে এসে আমলগ্রহণকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত দিরাই,সুনামগঞ্জ এ পৃথক পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।  এরমধ্যে একটি অভিযোগ দায়ের করেন একই ইউনিয়নের বাসিন্দা মৃত রাজকুমার তালুকদারের পুত্র অনিল তালুকদার । যার সি আর নং-৬৭/২০২৩ইং এবং আরও একটি অভিযোগ দায়ের করেন একই গ্রামের বাসিন্দা মৃত হরধন দাসের পুত্র অনিল দাস, যার সি আর মামলা নং-৬৮/২০২৩ ইং।  অভিযোগ সূত্রে জানা যায় গত ২৯/৩/২০২৩ইং তারিখ রোজ বুধবার রাত অনুমান ১১ঘটিকায় বাদী অনিল তালুকদারের বসত বাড়ীর পাশে নদীর পাড়ে রাখা দুটি পাওয়ার ট্রিলার মেশিন এবং দুটি মেশিনের লোহার চাকা চুরি হয়, যার মূল্য প্রায় ১লাখ বিশ হাজার টাকা। এবং ৩০/৩/২০২৩ইং তারিখ রোজ বৃহস্প্রতিবার রাত ১২টার দিকে বাদী অনিল দাসের বসত বাড়ীর নিকট কালী মন্দিরের পাশে করচ গাছের নিচে রাখা ১টি পাওয়ার ট্রিলার মেশিন চুরি হয়, যার মুল্য ৫০ হাজার টাকা। দুই বাদির মোট তিনটি মেশিন ও দুটি মেশিনের লোহার চাকা চুরির ঘটনায় এলাকার সচেতন মানুষেরা মিলে অনেক খোজাঁখোজির পর স্থানীয় শিববাজারে ভাঙ্গারী দোকানে জিজ্ঞাসা করলে ভাঙ্গারী দোকানের মালিক জানান তিনি ২ ও ৩ নং আসামীর নিকট থেকে তিনটি মেশিন ও দুইটি লোহার চাকা ক্রয় করেন। এ ঘটনায় পরে এলাকাবাসী ৩০/৩/২০২৩ইং তারিখ বিকাল সাড়ে ৩টায় শিববাজারের মাছ বাজার কমিটির সভাপতি তাপস রঞ্জন তালুকদার বিচার শালিসের আয়োজন করেন । ঐ শালিসে ইউ/পি সদস্য মাসুক মিয়া ২ ও ৩ নং আসামী মেশিন চুরির সাথে তার আত্মীয় এবং তিনি সেখানে উপস্থিত হন। এ সময় চোরের গডফাদার রফিনগর ইউ/পি সদস্য মাসুক মিয়া মেশিন চোর কাওছার ও তোহা মিয়াকে নিয়ে ৩১/৩/২০২৩ইং তারিখে বিষয়টি স্থানীয় ভাবে সমাধান করবেন বলে বিচার পাঞ্চায়েতের কাছ থেকে সময় নিয়ে চলে যান। পরে তিনি চোরদের নিয়ে আর পঞ্চায়েতদের সামনে আসেননি? বাজার কমিটির সভাপতি ও এলাকার লোকজন দিয়ে অনেক বার ইউপি সদস্যকে বলেও তিনি না আসায় বাজার কমিটির সভাপতি উদ্ধারকৃত মেশিনগুলো দুই বাদির জিম্মায় রাখেন এবং আদালতে গিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করার পরামর্শ পাওয়ার পরই এই মামলাগুলো দায়ের করা হয়। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মো. মাসুক মিয়া মেশিন চুরির বিষয়টি অস্বীকার করেন। ##   

কুলেন্দু শেখর দাস/সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি