[gtranslate]

তাহিরপুরে যোগাযোগ ব্যবস্থা বেহাল দশা দেখার কেউ নেই।


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : এপ্রিল ৪, ২০২৩, ১১:৩১ পূর্বাহ্ণ / ১৬
তাহিরপুরে যোগাযোগ ব্যবস্থা বেহাল দশা দেখার কেউ নেই।

প্রচেষ্টা নিউজ ডেস্ক:- 

সুনামগঞ্জ তাহিরপুর দীর্ঘ দিন ধরে রাস্তা সংস্কার ও মেরামত না করায়, জেলার উপর দিয়ে সদ্য বয়ে যাওয়া পাহাড়ি পানির চল এবং ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে জেলার বিভিন্ন এলাকার অভ্যন্তরীণ সড়ক ব্যবস্থা নাজুক হয়ে পড়েছে। কোথাও কোথাও অনেক কাঁচা রাস্তা ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কিন্তু এসব রাস্তাঘাট করে মেরামত বা সংস্কার করা হবে তা জানেন না এলাকাবাসী। গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট ভেঙ্গে ও বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে সব ধরনের যানচলাচল বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে হয়ে উঠেছেন রাস্তা ব্যবহারকারী সাধারণ মানুষ ও স্থানীয় এলাকাবাসী। প্রতিদিনই রাস্তার দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ ও জনপ্রতিনিধিদের প্রকাশ্যে গালমন্দ করছেন তারা। এ ভোগান্তি থেকে মুক্তি হবে কবে জানতে চায় এলাকার সর্বস্তরের জনগণ। এমনি একটি এলাকা সুনামগঞ্জের অবহেলিত জনপদ তাহিরপুর। স্বাধীনতার ৫২ বছর পার হলেও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের ছোয়া তেমন ভাবে লাগেনি তাহিরপুর উপজেলায়। অথচ তাহিরপুর উপজেলা থেকে সরকার প্রচুর পরিমান রাজস্ব পাচ্ছে প্রতি বছর। যে সরকার এসেছে তারাই নিজেদের আখের গোঁচাতেই ব্যাস্ত থাকে যার ফলে এ উপজেলার দিকে কারো নজর নেই। যেন দেখার কেউ নেই। তবে বর্তমান সরকারের ক্ষমতায় মোটামুটি বেশ কিছু রাস্তার কাজ হলেও সেগুলোর পরবর্তীতে চলাচল অনুপযোগী হলে আর নতুন করে সংস্কার করা হচ্ছে না এতে রাস্তা পরিণত হচ্ছে মরণ ফাদে এরকম ভাবেই তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের চারাগাওঁ বাশতলার একটি রাস্তা তৈরি হয়েছে মরন ফাদে । উপজেলার ব্যাবসা বানিজ্যের প্রান কেন্দ্র বাদাঘাট, উত্তর বড়দল, দক্ষিন বড়দল, তাহিরপুর সদর ইউনিয়ন, ৩টি শুল্ক ষ্টেশন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স,৩ টি কলেজ ও ছোট ছোট অর্ধশতাধিক গ্রামের জনসাধারন চলাচল করে এ সড়ক দিয়ে। এ বছর পাহাড়ি ডলে চারাগাওঁ বাসতলা সহ উপজেলার ভিন্ন স্থানে বড় বড় ভাঙ্গন থাকায় এখন যোগাযোগ প্রায় বিচ্ছিন্ন হতে বসেছে। চারাগাওঁয়ের এ রাস্তাটি দিয়ে এ উপজেলা ছাড়া ৪টি উপজেলার মানুষের যাতায়াত হয় বেশি বিশশ্বরপুর, ধর্মপাশা, তাহিরপুর ও মধ্যনগর তাই বর্তমানে এ রাস্তটি কাটা হয়ে দাড়িয়েছে উপজেলা গুলোর জনগনের৷ এছাড়াও গুরুত্বপূর্ন তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়ক হয়ে লালঘাট, বাশতলা, বাগলি রাস্তা চলাচলে অযোগ্য হয়ে পরেছে। জরুরী বিত্তিতে কোন রোগীকে যানবাহনে করে হাসপাতালে যাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়াও উপজেলা বিভিন্ন সড়কে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। সর্বস্তরের চলাচলকারী জনসাধারন,শিক্ষক,ছাত্র- ছাত্রী, অবিভাবকগন বলেন-এই রাস্তাটি খুবেই গুরুত্বপূর্ন বর্তমানে এই সড়ক দিয়ে চলাচল করা যাচ্ছে না চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে আমাদের সবাইকে। গুরুত্বের সাথে জরুরী বৃত্তিতে সংস্কার করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার দাবী জানাই উপজেলাবাসী।জরুরী বৃত্তিতে সংস্কার করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার দাবী জানাই সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের কাছে। চারাগাওঁ বাজারের ব্যবসায়ীরা সহ স্থানীয় এলাকাবাসী জানান- চারাগাওঁ বাশতলা রাস্তাটি আসা যাওয়ায় একমাত্র রাস্তা ভাঙ্গা ছোড়া থাকায় যাতায়াতে মালামাল পরিবহনে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে আর অতিরিক্ত টাকা দিতে হচ্ছে। চারাগাওঁ গ্রামের সাদ্দাম নামের একজন জানায়,আমরা এ রাস্তা দিয়ে সুনামগঞ্জে বিভিন্ন প্রয়োজনে প্রায় দৈনিক যেতে হয়৷ খুব দ্রুত কতৃপক্কের কাছে আকুল আবেদন জানাই যেন আমাদের এ সমস্যা সমাধান করেন। চরাগাওঁয়ের মেম্বার হাসান জানায়, পাহারি ডলে এ রাস্তাটি সহ ব্রিজ ভেঙ্গে গেছে এতে বিপাকে আছে এলাকার লোকজন। ময়মনসিংহ থেকে ঘুরতে আসা এক পর্যটক জানান, কলমাকান্দা থেকে টেকেরঘাট যাতায়াতের রাস্তা যদি ভালো হয় তাহলে পর্যটক এদিকে যেতে পারবে আমি নিজে মোটরসাইকেল নিয়ে গিয়েছিলাম অনেক কষ্ট হয়েছে সরকারের কাছে এবং ক্ষুদ্রতম কতৃপক্ষের কাছে আবেদন জানাই দ্রুত কলমাকান্দা থেকে টেকেরঘাটের রাস্তা সংস্কারের দাবি জানাই তাহলে তাহিরপুরে ময়মনসিংহ থেকে প্রতিদিন এই পর্যটকরা যেতে পারবে, রাস্তায় বেহাল দোসার কারণে পর্যটকরা এদিকে যেতে ভয় পাই, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঘুরতে আসা পর্যটক ফয়সাল আজম অপু বলেন, আমরা অনেক দূর থেকে এসেছি তাহিরপুর পর্যটন নগরী দেখার জন্য কিন্তু রাস্তার যে বেহাল দশা, দ্বিতীয়বার আসার আগে দশবার ভাবতে হবে এবং কেউ যদি আসতে চায় তাকে সত্যটা তুলে ধরতে হবে, সরকারের কাছে এবং কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানায় পর্যটন নগরী তাহিরপুরের রাস্তার সংস্কার উন্নয়নের কাজ জরুরী ভিত্তিতে পড়ার দাবি, ২০১৮ সালের পর্যটন নগরী ঘোষণা করা হলেও এখন পর্যন্ত উন্নয়নের কোন ছোঁয়া লাগেনি। প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক ঘুরতে আসে তাহিরপুরের শিমুল বাগান, বারিকের টিলা, নীলাদ্রি সহ উপজেলার বেশ কয়েকটি পর্যটক স্পটে প্রত্যেকের একটাই অভিযোগ যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না তাই কর্তৃপক্ষের কাছে বিনীত অনুরোধ জানাবো দূরত্ব পর্যটন নগরীর যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করার জন্য, যেখানে আমরা স্মার্ট বাংলাদেশে বাস করছি, কিন্তু যোগাযোগ ব্যবস্থা দেখলে মনে হয় এখনো পড়ে আছি মধ্যযুগে, বেশ কিছুদিন আগে তাহিরপুর উপজেলার ব্রাহ্মণ গাঁও গ্রামে মধ্যরাতে হামলার ঘটনা ঘটে এতে গুরুতরে আহত হন এক মহিলা কিন্তু যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় ঠেলাগাড়ি দিয়ে রাত দুটার সময় উপজেলাতে নিতে হলো, প্রতিনিয়তই ডেলিভারি রোগীর সহ গুরুতর আহত রোগীদের কে ঠেলাগাড়ির মাধ্যমে উপজেলা হাসপাতালে নিতে হয় তার মধ্যেও অনেক ভোগান্তির শিকার হতে হয়।