[gtranslate]

ঠাকুরগাঁও-৩ আসন সংসদ সদস্য পদপ্রার্থীতা ফিরে পেলেন অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ২৩, ২০২৩, ১১:১২ পূর্বাহ্ণ / ২৫
ঠাকুরগাঁও-৩ আসন সংসদ সদস্য পদপ্রার্থীতা ফিরে পেলেন অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়

স্টাফ রিপোর্টর।।ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার কৃত্তি সন্তান ডিএন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায় গত ৫ই জানুয়ারি ২০২৩ ইং তারিখে আসন্ন উপনির্বাচনে স্বতন্ত্র সাংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করেন।গত ৮ জানুয়ারি ২০২৩ইং তারিখে জেলা রিটার্নিং কার্যালয়ে বাছাই পর্বে এক জন ব্যক্তির ঋনের জামিনদার থাকার কারনে প্রার্থীতা বাতিল করেন ঠাকুরগাঁও জেলা রিটার্নিং অফিসার।এ বিষয়ে উক্ত লোন গ্রহিতার সূদে আসলে সকল টাকা পরিশোধ করে।হাইকোর্টে সংসদ সদস্য পদপ্রার্থীতা ফিরে পাওয়ার জন্য আবেদন করলে রিট আবেদন খারিজ হয়ে যায়। এবং পরবর্তীতে সুপ্রিম কোর্টে পূনরায় প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ার জন্য রিট আবেদন করলে ২২শে জানুয়ারি ২০২৩ আদালতের রায়ের নির্দেশে প্রার্থীতা ফিরে পান অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়।উচ্চ আদালতের এ রায়ে প্রার্থীতা ফিরে পেলে তিনি মটরগাড়ি মার্কা চান সে বিষয় এলাকায় তোলপাড় শুরু হলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে মটর গাড়ী (কার)মার্কা ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন ভোটারা নিজ খরচে পোষ্টার বানিয়ে গণমাধ্যমে ছড়িয়ে দেন এতে পীরগঞ্জ ও রানীশংকৈল উপজেলা বাসীগণ গণজোয়ারে ভাসতে থাকেন গোপাল চন্দ্র রায় পক্ষে। ২৩ শে জানুয়ারী ২০২৩ ইং তারিখে জেলা রিটার্নিং অফিসার তাকে একতারা প্রতীক বরাদ্দ দেন।এ বিষয়টি নিশ্চিত হলে ভোটার ও সমর্থকরা তৎক্ষনাৎ বিভিন্ন গণমাধ্যমে অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়ের একতারা মার্কা প্রতীকের প্রচার প্রচারণায় ভাইরাল হয়ে যায়।বর্তমানে ভোটের মাঠে উত্তাল তরঙ্গের ঢেউ উঠেছে একতারা মার্কায় পীরগঞ্জ ও রানীশংকৈল উপজেলা বাসীর কাছে।, প্রার্থীতা ফিরে পেয়ে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের পীরগঞ্জ ও রানীশংকৈল উপজেলা বাসীর কাছে মুঠোফোনে ভোটার মাঝে পৌঁছে যায় সে খবর।এ খবর পেয়ে পীরগঞ্জ ও রানীশংকৈল উপজেলায় তোলপাড় শুরু হয় আলোচনার ব্যাপক ঝর।ভোটার ও সমর্থকদের মাঝে মুহূর্তেই একতারা মার্কার উত্তাল তরঙ্গের ঢেউ উঠে আসে অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়ের পক্ষে।, আসন্ন ঠাকুরগাঁও-৩ পীরগঞ্জ ও রানীশংকৈল ভোটের নির্বাচনের মাঠে শুরু হলো চারিদিকে গোপাল চন্দ্র রায়ে একতারা মার্কার প্রচারণার সুর।অনেকের মুখে শোনা যায় এবার ভোট দেওয়ার জায়গা খুঁজে পেলাম।প্রার্থী এখন আমাদের গোপাল চন্দ্র রায় একতারা মার্কা এ মার্কায় ভোট দিয়ে তাকে নির্বাচিত করে পীরগঞ্জ ও রানীশংকৈল উপজেলা বাসীর উন্নয়ন ঘটাতে চাই।, এবিষয়ে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়ের সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমি মটরগাড়ি মার্কা চাইছিলাম কিন্তু নির্বাচন কতৃপক্ষ সে মার্কা না দিয়ে একতারা মার্কা প্রতীক বরাদ্দ দেন। আর এই এক তারা প্রতীকে আগামী ১ লা ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ভোট দিয়ে আমাকে এমপি হিসেবে নির্বাচিত করবেন বলে একতারা মার্কায় ভোট চান অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়।আর এই একতারা মার্কা নিয়ে এবিষয়ে অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায় অদ্য ২৩ জানুয়ারী -২০২৩ সোমবার নিজ নির্বাচলী এলাকায় পথ সভা করার কথা আছে বলে জানা যায়।