[gtranslate]

ঝিনাইগাতীতে পূর্ব শত্রুতার যের ধরে ৪ একর জমিতে বন মারার বিষ প্রয়োগ


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১০, ২০২৩, ৩:১৪ অপরাহ্ণ / ২৬
ঝিনাইগাতীতে পূর্ব শত্রুতার যের ধরে ৪ একর জমিতে বন মারার বিষ প্রয়োগ

মোঃ আল-আমিন ,বিশেষ প্রতিনিধি শেরপুরঃ

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেখানে বলেছেন বাংলাদেশের এক ইঞ্চি জমিও যেনো পতিত না থাকে শেখানে শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলার ধানশাইল ইউনিয়নের কুচনিপাড়া গ্রামে পূর্ব শত্রুতার যের ধরে ০৪/০৪/২৩ ইং তারিখ হইতে ০৫/০৪/২০২৩ ইং তারিখের মধ্যে আনুমানিক রাত ১২.০০ ঘটিকা হইতে ভোর ৪.০০ ঘটিকার মধ্যে যে কোন সময় ঐ এলাকার আব্দুল বারিকের আবাদি ধান নষ্ট করতে গিয়ে আরো ৪-৫ জনের প্রায় ৪ একর জমিতে বন মারার বিষ প্রয়োগ করে আধা পাকা ধান নষ্ট করে ফেলেছে।এতে প্রায় দুই লক্ষ্য পঞ্চাশ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন এলাকা বাসি। এলাকাবাসি বলে ধান ক্ষেতের এই অবস্থা দেখে আমরা কিছু ধান গাছ কৃষি অফিসে নিয়ে গেলে এসব ধান গাছে বিষ প্রয়োগ করে মেরে ফেলেছে বলে নিশ্চিত করেন কৃষি অফিসার।  আব্দুল বারিক সহ এলাকা বাসি নিশ্চিত করে বলেন এই ধরনের নেক্কার জনক ঘটনাটি ঐ এলাকারি প্রভাব শালি ব্যক্তি নুরুল আমিনের দুই ছেলে লোকমান হোসেন ও মামুন মিয়া ঘটিয়েছে। অভিযোক্তদের বিষয়ে নিশ্চিত করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব। এলাকাবাসি বলেন ধান নষ্ট করার কিছুক্ষন পরেই ঐ এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব বিষের টেংকি সহ লোকমান হোসেন কে জমিতে দেখে।লোকমান হোসেন বিজিবেতে চাকরি করে বলে জানা যায়।এলাকা বাসি বলে লোকমান হোসেন বিজিবিতে চাকরি করে আর এই শক্তিতেই তিনি এসব কাজ করেছে।এলাকাবাসি আরো বলে লোকমান হোসেন যেখানে চাকরি করে শেখান থেকেই রিমোটের মাধ্যমে বোম মেরে এলাকা উরিয়ে দিবে।এসব বলে ভয় দেখায় এলাকা বাসিকে। এসব ঘটনার কথা জানতে পেরে ২ নং ধানশাইল ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে আসে এবং এর নিন্দা জানায়।সেই সাথে এলাকাবাসিকে আইনের আশ্রয় নিতে বলেন। ঘটনার পরদিন এলাকাবাসি এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে বসে লোকমান হোসেন সহ বাকি আসামীদের ডাকলে এলাকা বাসির ডাকে সারা না দিয়ে পরে আরো যাদের ধান নষ্ট করেছে তাদের আরো বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখাতে থাকে।তখন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব লোকমান হোসেন কে বোঝাতে গেলে লোকজনের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব কে ধাক্কা মেরে সবার সামনেই ফেলে দেয়।  ঘটনার কথা লোকমান হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে উরিয়ে দেয়।লোকমান হোসেন আরো বলেন এলাকা বাসি যদি আমার কিছু করতে পারে তাহলে করুক। এলাকাবাসি নিরুপায় হয়ে ঝিনাইগাতী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।ঘটনাটির সুষ্ঠু তদন্ত চলছে বলে জানা যায়।