[gtranslate]

ছাত্রছাত্রীদের রাস্তায় দাড় করিয়ে রেখে চড়-থাপ্পর দিলেন অধ্যক্ষ


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : নভেম্বর ৬, ২০২১, ২:১৯ অপরাহ্ণ / ৮৬
ছাত্রছাত্রীদের রাস্তায় দাড় করিয়ে রেখে চড়-থাপ্পর দিলেন অধ্যক্ষ

 

আরিফুল ইসলাম মুরাদ স্টাফ রিপোর্টার বরগুনা

 

অধ্যাক্ষ কতৃক নির্ধারিত টেইলার্সের দোকান থেকে ইউনিফর্ম না বানানোয় শিক্ষার্থীদের কলেজে ডুকতে দেননি বরগুনা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মতিউর রহমান। এছাড়া ছাত্রদের চড়-থাপ্পর দিয়ে পাঠিয়ে দেয়ারও অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

শনিবার (৬ অক্টোবর) সকাল দশটায় বরগুনা সরকারি কলেজ গেটে এঘটনা ঘটে।

 

জানা যায়, কলেজ থেকে নির্ধারিত টেইলারিং দোকান থেকে ইউনিফর্ম না বানানোর অপরাধে এবং পরিপূর্ণ ইউনিফর্ম না পড়ে আাসায় সকল ছাত্রছাত্রীদের কলেজ গেটের বাইরে দাড় করিয়ে রাখেন অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। যাদের ইউনিফর্ম নেই তাদেরকে বাসায় চলে যেতেও বলেন তিনি। কিন্তু ছাত্ররা না যেতে চাইলে তেড়ে এসে তাদের উপর চড়াও হন তিনি। একপর্যায়ে ছাত্রদের চড় মেরে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে চলে যেতে বলেন অধ্যক্ষ।

প্রত্যক্ষ্যদর্শী ছাত্র ছাত্রীরা জানান, প্রিন্সিপাল স্যার আমাদের বরগুনার ইসলামিয়া বস্ত্রালয় থেকে ইউনিফর্ম বানাতে বলেন। কিন্তু সেখানে খরচ বেশী হওয়ায় আমরা ছোট দোকান থেকে কম খরচে ইউনিফর্ম বানিয়েছি। আমাদের মধ্যে অনেকেই পরিপূর্ণ ইউনিফর্ম না পড় শুধু শার্ট পরে এসেছে। কিন্তু সকালে কলেজে গেলে গেটের মধ্যে আমাদেরকে ভেতরে ঢুকতে দেয়নি।

ছাত্ররা আরও জানায়, এর কিছুক্ষণ পর প্রিন্সিপাল স্যার এসে আমাদের উপর চড়াও হয়। অনেককেই চর মেরে গলা ধাক্কা দিতে থাকেন। আমাদেরকে বাসায় চলে যেতে বলেন। একপর্যায়ে আমাদের একজন সহপাঠী বলে যে “স্যার এটা ঠিক না”। এটা বলার সাথে সাথে ওই ছেলেকে কলার ধরে টানতে টানতে প্রিন্সিপালের রুমে নিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর তাকে ছেড়ে দেয়।

 

তবে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বরগুনা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বলেন, কলেজে যাতে বহিরাগতরা প্রবেশ না করতে পারে সেজন্য ছাত্রদের ইউনিফর্ম ও আইডি কার্ডের কথা বলা হয়েছিলো। ওদের কয়েকজনের ইউনিফর্ম ছিলোনা, আমি বহিরাগত ভেবে ভেতরে ঢুকতে দেইনি। এমনকি ছাত্ররা কলেজ গেটে স্লোগান দিতে শুরু করেছিলো, আমি তা হতে দেইনি। এছাড়া অন্য কিছু হয়নি।