[gtranslate]

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৮ নং বাঁধে ককটেল ফাটিয়ে ঠিকাদারের ম্যানেজারকে আহত করে টাকা ছিনতাই এর জট খুললো


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : মার্চ ৯, ২০২৩, ১০:৪৭ পূর্বাহ্ণ / ১৮
চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৮ নং বাঁধে ককটেল ফাটিয়ে ঠিকাদারের ম্যানেজারকে আহত করে টাকা ছিনতাই এর জট খুললো

ফয়সাল আজম অপু, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে ঠিকাদারের ম্যানেজারকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে বাঁধ নির্মাণ কাজের শ্রমিকদের মজুরির ৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা দূর্বৃত্তরা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (৭ মার্চ) বেলা ৩টায় সদর উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের নবাবজায়গীর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত ম্যানেজার আব্দুল মমিন শাহিন আলীকে প্রথমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ২৫০ সয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে, পরে অবস্থার অবনতি হলে বুধবার (৮ মার্চ) সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। আহত ম্যানেজার শিবগঞ্জ উপজেলার নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়নের চর ঘোড়াপাখিয়া গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে। আহত শাহিন জানান, গত ৩ মার্চ থেকে সদর উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের নবাবজায়গীর এলাকায় ৮ নম্বর বাঁধে, ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে, ৮ কিলোমিটার বেড়িবাঁধের কাজ শুরু হয়েছে। এরপর থেকেই বড় মরাপাগলা গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে নয়ন আলী (৩০) ঠিকাদারের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা চাঁদা নিয়ে দেওয়ার জন্য তাকে চাপ দিয়ে আসছিল। তার কাছে বাঁধের শ্রমিকদের মজুরি দেওয়ার জন্য ৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা ছিল। এমন অবস্থায় বিকেল ৩টার দিকে নয়ন ১০-১২জনকে সঙ্গে নিয়ে এসে বাঁধ এলাকায় একটি ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে তাকে লোহার রড দিয়ে মাথা ও শরীরে বিভিন্ন স্থানে পিটিয়ে গুরুতর আহত করলে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে সন্ত্রাসীরা তার ব্যাগে থাকা ৪ লাখ ৭০ হাজার টাকাসহ মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এ ঘটনার পর স্থানীয়রা আব্দুল মমিন শাহিনকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আহত আব্দুল মমিন শাহিন। নয়ন জেলা ছাত্র লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক।অপরদিকে নয়ন চাঁদাবাজি ও টাকা ছিনতাই এর কথা অস্বীকার করে জানান, সুন্দরপুর ইউপি চেয়ারম্যানের মধ্যেস্থতায় আমাদের ছাত্রলীগের ছেলেদের ঠিকাদার নাসিরের কাজের একটা শেয়ার দেয়ার কথা ছিলো। কিন্তু ঠিকাদার নাসির কথা রাখেনি, এবিষয়ে বলতে গিয়েই আমাদের সাথে কথাকাটি। একপর্যায়ে ম্যানেজার শাহিনের নেতৃত্বে ১৫/২০ জন মিলে আমাদের ধাওয়া করে। এতে করে আমরা ওই এলাকা ত্যাগ করি। এবিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঠিকাদার নাসির মুঠোফোনে জানান, ৮ নং বাঁধে কাজ শুরুর পর থেকেই নয়ন বিভিন্ন ভাবে দলবেঁধে চাঁদা দাবী করে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বিকালে ১৫/২০ জন মোটরসাইকেলে এসে ককটেল ফাটিয়ে আমার ম্যানেজারকে গুরুতর আহত করে ৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আইনি ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি। এবিষয়ে সুন্দরপুর ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান মাষ্টার মুঠোফোনে বলেন, আমি শুনেছি নয়ন দলবল নিয়ে বাঁধে কাজের কাছে গিয়ে ককটেল ফাটিয়ে ম্যানেজার শাহিনকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এটি অনাকাঙ্ক্ষিত ও দুঃখজনক ঘটনা। আপনার মধ্যস্থতায় নাকি নয়নের সাথে নাসির ঠিকাদারের দফারফা হয়েছিলো এমন প্রশ্ন করা হলে কোনো সদুত্তর না দিয়ে রোগী নিয়ে বাইরে আছি বলে ফোন কেটে দেন। এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাজ্জাদ হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোনে তিনি জানান, এ নিয়ে এখন পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।