[gtranslate]

গফরগাঁওয়ের যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে নারীকে ধর্ষণ ও গর্ভপাতের অভিযোগ


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৪, ২০২৩, ৯:৩৪ পূর্বাহ্ণ / ৬৪৪
গফরগাঁওয়ের যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে নারীকে ধর্ষণ ও গর্ভপাতের অভিযোগ

শিবলী সাদিক খানঃ ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক এম এ কাওসার স্কয়ার মাস্টার বাড়ি এসলাইট গার্মেন্টস বাংলাদেশ কোঃ লিঃ প্রতিষ্ঠানের জুটের ব্যবসা করার সুবাদে একই প্রতিষ্ঠানের চাকুরীরত কল্যাণ কর্মকর্তা নারীর সাথে পরিচয় সূত্রে প্রেম ভালোবাসার সম্পর্কের সুবাদে বিয়ের প্রলোভনে শারিরীক দৈহিক মেলা মেশায় অন্তঃসত্ত্বা হলে নারীর গর্ভপাত ঘটানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার বীর বুখুরা (উত্তর পাড়া) গ্রামের রাজাকার আবুল হাসেমের ছেলে এম এ কাওসার। সে বিবাহিত, তার স্ত্রী শ্রীপুর উপজেলার আকনবাড়ী প্রাইমারি স্কুলের সহকারী শিক্ষক। স্কুলের কাছেই তার বসবাস। এই দম্পতির এক ছেলে এক মেয়ে রয়েছে।

এসলাইট গার্মেন্টসের নারী কল্যাণ কর্মকর্তা জানান, জানুয়ারী ২০২৩ইং হইতে জুন ২০২৩ইং পর্যন্ত বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে ভালুকা ও শ্রীপুর এলাকায় বিভিন্ন হোটেল ও রিসোর্টে ঐ নারীকে নিয়ে আপত্তিকর ছবি উঠিয়ে নানা প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন করে। দীর্ঘ ৬ মাসের মেলা মেশা ভিকটিম ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিয়ে না করে জোরপূর্বক গর্ভপাতের ঔষধ সেবন করিয়ে গর্ভপাত করায় বলে ভিকটিম মৌখিকভাবে এ প্রতিবেদককে জানান।

ভিকটিম বলেন, প্রতারণা করে আমাকে ধর্ষণ ও গর্ভপাত ঘটানোর ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করেছি। এর আগেও ভালুকা থানা পুলিশে অভিযোগ সহ যোগাযোগ করলে ধর্ষক কাওসারের প্রভাব ও অর্থবিত্তের কারনে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছি।

ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার অসহায়দের পাশে দাড়াঁন এমন অনেক সুনাম জেনেই অভিযোগ দায়ের করি, অভিযোগের তদন্ত জেলা গোয়েন্দা শাখায় ন্যাস্থ করা হয়েছে, আশাকরি ন্যায় বিচার পাব।

এবিষয়ে এম এ কাওসার এর মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার সাথে কি এখন সম্পর্ক আছে? অভিযোগ দিয়েছে ভালো কথা প্রমাণ করুক।