[gtranslate]

খুলনা আর্ট একাডেমির দুই শিক্ষার্থী সর্বপ্রথম বাংলাদেশের মানচিত্রের রুপে ইলেকট্রিক গীটার  তৈরী করে সফল হয়েছে।


প্রাচেস্টা নিউজ প্রকাশের সময় : এপ্রিল ৯, ২০২৩, ৪:৪৯ পূর্বাহ্ণ / ১৯
খুলনা আর্ট একাডেমির দুই শিক্ষার্থী সর্বপ্রথম বাংলাদেশের মানচিত্রের রুপে ইলেকট্রিক গীটার  তৈরী করে সফল হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

কর্মই মানুষকে বড় করে।খুলনা শহরে শৈশব থেকে বেড়ে উঠেছে লাবনান জামি ও তারি বন্ধু অহিদ আল হক। সাংস্কৃতিক চর্চার মাধ্যমে বেড়ে উঠেছে দুই বন্ধু মিলে উদ্যোগ নিলেন বাংলাদেশের মানচিত্র দিয়ে গিটারের অবকাঠামো তৈরি করা।বর্তমানে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ইলেকট্রিক গিটার প্রচলন রয়েছে বেশি। বড় বড় শিল্পীরা ইলেকট্রিক গিটারে গান পরিবেশন করে তারা।লাবনান জামি ও তার বন্ধু ব্যান্ড সংগীত চর্চা করে।তারা নিজেরাই পেইনকিলার নামে একটি ব্যান্ড এর দল পরিচালনা করেন। তাই গিটারের প্রতি রয়েছে তাদের অধিক ভালোবাসা। তাই নবীনদের মাঝে যদি গিটারকে সহজলভ্য ও কম দামের ভেতর নিয়ে আসা এবং নিজস্বতা অর্জন করতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে চিত্রশিল্পী মিলন বিশ্বাসের কাছে দুই বন্ধু আসে।স্যার আপনার সহযোগিতা চাই কাঠের উপরে আমরা একটি বাংলাদেশের মানচিত্র তুলে ধরে গিটারের রূপ দিতে ইচ্ছুক।আপনি আমাদের সহযোগিতা করুন।আমি নবীনদের উদ্যোগ দেখে আনন্দে আপ্লুত। নবীদের উদ্দেশ্য শুনে আমি তাদেরকে অনুমতি দিলাম এবং তখন তারা বলেন স্যার আমরা গুগলে অনেক সন্ধান করে দেখেছি পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত মানচিত্রের রূপে কোন গিটার তৈরি হয়নি।তাই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি।তারা কাজ শুরু করে ৫ই আগষ্ট ২০২১ সালে।এই গিটারের ডিজাইন চিত্রশিল্পী মিলন বিশ্বাসের সহযোগিতায় বাংলাদেশের মানচিত্রে রূপ পায় গিটারের আনুসঙ্গীক কাজ শেষ হয় ২৫অক্টোবর, ২০২২ ইং। গিটারের সম্পূর্ণ রূপ কার্যক্রম শেষ করে চিত্রশিল্পী মিলন বিশ্বাসের কাছে পুনরায় দুই ছাত্র আসে। এ সময় শিক্ষার্থীদের হাতে গিটার দেখে শিক্ষকের প্রাণ ভরে যায়।ছাত্র লাবনান দুইটি গান বাজিয়ে শোনায়। গান শুনে চিত্রশিল্পী মিলন বিশ্বাস অভিভূত হয়ে বলে আমার জীবন ধন্য, লাবনান ও অহিদ তোমাদের মতো শিক্ষার্থীদের শিক্ষক হতে পেরে।প্রথমেই আমি তোমাদের পিতা-মাতাকে অভিনন্দন জানাই তারা তোমাদের সহযোগিতা করেছে তাই তোমাদের মেধা কাজে লাগিয়ে উদ্যোক্তা হতে পেরেছো।আমি ছোট থেকে উদ্যোক্তাদের খুব পছন্দ করি। কোন কিছু দেখে করার মাঝে কোন আনন্দ নেই।যারা সৃষ্টি করতে জানে তাদের চেয়ে গুণী মানুষ আমার দৃষ্টিতে আর নেই ।আমি আশীর্বাদ করি তোমাদের জীবন অনেক সুন্দর হবে।সর্বোপরি বলবো যারা সংস্কৃতি চর্চা করেন তারা ভালো মনের অধিকারী হয়ে থাকেন। তাই তোমাদের যদি কখনো আমাকে প্রয়োজন হয় সর্বক্ষণ তোমাদের জন্য আমার দরজা খোলা থাকবে।সারা বিশ্বে তোমাদের এই সৃষ্টি ছড়িয়ে পড়ুক ইতিহাসের পাতায় লেখা হোক তোমাদের নাম। এই খবরটি বাংলাদেশের সাংবাদিক ভাইরা যদি প্রকাশ করেন তবে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের যেসকল বিজ্ঞ মহোদয় রয়েছেন আপনারা অবশ্যই এই নবীনদের সরকারি স্বীকৃতি সহ তাদের মেধার মূল্যায়ন করবেন। তবে ভবিষ্যতে তারা অনেক বড় হতে পারবেন আমি একজন চিত্রশিল্পী হিসেবে এমনটা আশা করি। তাদের নাম গ্রিনিস বুকে স্থান পেলে এটি বাংলাদেশের সুনাম বয়ে আনবে।খুলনার দুই কৃতি সন্তান এরকম একটি মহতী সুন্দর উদ্যোগ নেওয়ায় খুলনা আর্ট একাডেমি তাদের জন্য শুভ কামনা করছেন তাদের মত নবীন উদ্যোক্তা পেয়ে তাদের গিটারের ডিজাইন অংকন করার সুযোগ পেয়েছি। এই গিটারের গান শুনতে চাইলে Khulna Art Academy ইউটিউবে ভিজিট করুন।সর্বশেষে তাদেরকে বুকে জড়িয়ে নিয়েছি এবং এই নবীদের উদ্যোগ সফল হওয়ায় আমি আনন্দিত হয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করি। তোমরা দেশের গর্ব তোমাদের কর্মই এই দেশের সুনাম বয়ে আনবে। দেশবাসী আপনারা সবাই আমার ছাত্রদের জন্য শুভকামনা করবেন। সকলের মঙ্গল কামনায় চিত্রশিল্পী মিলন বিশ্বাস।

বার্তা প্রেরক: চিত্রশিল্পী মিলন বিশ্বাস: প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক, খুলনা আর্ট একাডেমি